1. editor@jagratajanata24.com : editor :
  2. info@holyit.net : jjanata24 :
  3. admin@gmail.com : newsjjanata24 :
হাটহাজারীতে আধুনিক হাসপাতালে রোগীকে নানা হয়রানি - জাগ্রত জনতা ২৪
সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ০২:৫৩ অপরাহ্ন
হেড লাইন :
বরগুনা থানা পুলিশের উদ্দ্যোগে আনন্দ উদযাপন অনুষ্ঠিত আড়পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়ন আ’লীগ’র বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত: শিক্ষিত ভালো ব্যাক্তি দিয়ে নতুন নেতৃত্ব চান সাধারণ জনগণ ৭ই মার্চ উপলক্ষে হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজের ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্প ও আলোচনা সভা ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ: বেতাগী থানা পুলিশের আনন্দ উদযাপন গলাচিপা প্রেস ক্লাবে সাংবাদিকদের সাথে অ্যাডভোকেট ফখরুল ইসলাম মুকুলের মত বিনিময় সভা বাউফলে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ পালিত দশমিনায় থানা পুলিশের উদ্দ্যোগে আনন্দ উদযাপন অনুষ্ঠিত বান্দরবান পুলিশ বিভাগের উদ্যোগে আনন্দ উদযাপন মায়ের সাথে অভিমান করে কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যা! আমতলীতে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ পালিত

হাটহাজারীতে আধুনিক হাসপাতালে রোগীকে নানা হয়রানি

  • সর্বশেষ আপডেট : শুক্রবার, ১৫ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৯৬০ বার পঠিত
মো. আবু শাহেদ, হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ
চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে আধুনিক হাসপাতাল (মেটারনিটি ইউনিট) নামক ক্লিনিক চিকিৎসা সেবার নামে রোগীদের নানা হয়রানি ও ধোকাঁ দিয়ে চলছে। এতে ভোগান্তির শিকার হন হাজারো রোগী।প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন ধরনের চাপ নেই বলেই রোগীদের সাথে এমন আচরণ করছেন বলে স্থানীয়দের মন্তব্য। ভুল চিকিৎসা, ভুল রিপোর্টে কষ্ট পাচ্ছেন রোগীরা।
ভুক্তভোগির লোকমান সওদাগর বলেন, কয়েকদিন আগে আমার শরীরে ডায়াবেটিস ও জ্বরে আক্রান্ত হওয়ায় আধুনিক হাসপাতালে গিয়েছিলাম। ডাক্তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে রিপোর্টে জানান, আপনার ডায়াবেটিস সুগার ২২:০৪ এবং জ্বর ১০৪’ ডিগ্রী। আপনাকে এই হসপাতালে রাখা যাবে না। শহরে বড় একটা হাসপাতালে চলে যান। না হয় আপনাকে বাঁচানো সম্ভব না। পরে আমি চট্টগ্রাম ক্যান্টনমেন্ট জেনারেল হসপিটালে একই তারিখে এক ঘন্টা পর চিকিৎসাসেবানি। সেখানে আমার ডায়াবেটিস সুগার ১১:০২ এবং জ্বর ১০২’ ডিগ্রী। কিন্তু আধুনিক হাসপাতালের এমন রিপোর্টে আমি হতবাক!
আরেক ভুক্তভোগী মুহাম্মদ মুছা বিএসসি বলেন, আধুনিক হাসপাতাল নামক কসাইখানায় দীর্ঘদিন যাবত আমার স্ত্রীকে (গাইনি) চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছিলাম। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আমাদেরকে নানান ধরনের হয়রানি ও ভয়-ভীতি দিয়ে আসছিল। আমার স্ত্রীর বাচ্চা ডেলিভারির জন্য আলট্রাসনোগ্রাফি করিয়ে ছিলাম। রিপোর্টে আসছে-বাচ্চার কন্ডিশন ভালো না! বাচ্চার ওজন কম, বাচ্চার নড়াচড়া করছে না, বাচ্চার মাকে সিজার করতে হবে! না হয় বাচ্চা ও বাচ্চার মা, যে কোন একজন মারা যেতে পারে। আমাকে বলে যে লিখিত জিম্মানামা স্বাক্ষর দিতে হবে। যাতে কেউ মারা গেলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। এমনটা বলার পর আমি হতবাক নিরুপায় হয়ে দাঁড়িয়ে ছিলাম। মুহূর্তেই আমি ওই হাসপাতাল থেকে আমার স্ত্রীকে বের করে হাটহাজারী মা ও শিশু হাসপাতালে ভর্তি করায়। আলহামদুলিল্লাহ! ভর্তি করানোর এক ঘন্টা পর আমার পুত্র সন্তান জন্মগ্রহণ করে। ডেলিভারি নরমাল হয়েছে, বাচ্চা ও বাচ্চার মা দুজনই সুস্থ আছেন। কিন্তু আধুনিক হাসপাতালে রোগীকে সেবার নামে নানা হয়রানি ও ভয়-ভীতি প্রদর্শনের প্রশ্ন থেকে যায়!
হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রুহুল আমিন জানান, বাসস্ট্যান্ডে সড়ক ও জনপদের জায়গায় গড়ে ওঠা আধুনিক হাসপাতালে বৈধ কোন কাগজপত্র নেই। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ছাড়পত্র নেই, পৌরসভার ট্রেড লাইসেন্স ও কর সনদপত্র নেই। তারপরেও মানুষ কেন যে চিকিৎসাসেবা নিতে সেখানে যায় আমার সঠিক জানা নেই।
এ জাতীয় আরো খবর
Developed by