1. editor@jagratajanata24.com : editor :
  2. info@holyit.net : jjanata24 :
  3. admin@gmail.com : newsjjanata24 :
বরগুনায় ক্ষুধার্ত কুকুরদের পাশে "পশুপ্রেমী দুই অফিসার'  - জাগ্রত জনতা ২৪
শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১০:৫২ অপরাহ্ন
হেড লাইন :
যান্ত্রিক ত্রুটি।পুড়ে গেছে বরগুনার ইপিআই ভবনের দু’টি ফ্রীজ। তদন্ত কমিটি গঠন। আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে কলাপাড়ায় ছাত্রলীগ নেতার ডান হাতের কব্জি কর্তন বান্দরবানে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, পানিবন্দী ৫০ হাজার মানুষ সুন্দরী ফলে ছেয়ে গেছে কুয়াকাটার সৈকত আমতলীতে করোনায় অজ্ঞাত এক যুবক ও এক বৃদ্ধার মৃত্যু সাগরের বড় বড় ঢেউ তীরে এসে আছড়ে পড়ছে। পোতাশ্রয় নিয়েছে শিববাড়িয়া নদীতে শত শত মাছ ধরা ট্রলার টমটম দুর্ঘটনায় আহত পরিবারকে দশমিনায় আর্থিক সহায়তা প্রদান নিজের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে অনুদান দিলেন চেয়ারম্যান জাফর ইকবাল লকডাউনের ৭ম দিনে ব্যাপক তৎপর গলাচিপা উপজেলা প্রশাসন দশমিনায় গ্রাম-পুলিশের মাঝে সাইকেল বিতরন

বরগুনায় ক্ষুধার্ত কুকুরদের পাশে “পশুপ্রেমী দুই অফিসার’ 

  • সর্বশেষ আপডেট : শনিবার, ৩ জুলাই, ২০২১
  • ৬৫ বার পঠিত

 

অলিউল্লাহ ইমরান, বরগুনাঃ
মানুষের ছুড়ে ফেলা খাবার কিংবা হোটেলের উচ্ছিষ্ট খেয়ে বেঁচে থাকে কুকুর। করোনা ভাইরাসের প্রকোপে শহর যখন ফাঁকা, মানুষের ছায়াও যখন চেষ্টা করে দেখা যাচ্ছে না- তখনো শহরের কুকুরগুলো ডাস্টবিনে খুঁজে বেড়াচ্ছে খাবার। কিন্তু মিলছে না কোনো খাবার। এমন পরিস্থিতিতে ক্ষুধার্ত কুকুরদের পাশে দাঁড়িয়েছেন সদর থানার অফিসার ইনচার্জ তারিকুল ইসলাম ও পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শহিদুল ইসলাম মিলন।

১জুলাই থেকে অন্যান্য জেলার ন্যায় বরগুনায় লকডাউন শুরু হওয়ায়, শনিবার রাতে নিজেরাই খিচুরি রান্না করে নিয়ে শহরের ক্ষুদার্থ কুকুরদের জন্য খাবার নিয়ে ছুটছেন এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে। বাজার রোড, সদরঘাট, লেক পার, কলেজ রোড এলাকায় ঘুরে বেড়ানো ৩০-৩৫টি কুকুরের মুখে খাবার তুলে দেন সদর থানার দুই অফিসার ইনচার্জ। মানুষের মতো চারপাশের প্রাণীগুলোরও বাঁচার অধিকার আছেন। এই পরিবেশের ভারসাম্য বজায় রাখে তারাও। এই অফিসারদের মতো এমন আরো কিছু মানুষ যদি এগিয়ে আসে তাদের পাশে। তাহলে খাবারের অভাবে একটা কুকুরও মরে পড়ে থাকবে না কোথাও, মনে করছে পশুপ্রেমীরা।


পশুপ্রেমী অফিসার ইনচার্জ তারিকুল ইসলাম বলেন, দেশজুড়েই চলছে লকডাউন। করোনার প্রকোপ ঠেকাতে এটাই একমাত্র পথ। আর তাই টানা অনেক দিনের কঠোর লকডাউন। শুনশান চারদিক। খাঁ খাঁ করছে রাস্তাঘাট। খাদ্য সামগ্রী, রেশন ব্যবস্থা, ওষুধের দোকান সহ জরুরী পরিষেবা স্বাভাবিক। আর এই লকডাউনের জেরে বাড়ছে আতঙ্ক। সমস্যায় পড়েছে পথ কুকুরেরা। ‘‘ওরা কি খাবে? আমাদের তো তাও খাবার জুটছে। খাবার না পেলে তো না খেয়ে মারা যাবে। তাই পথে বেরিয়ে পড়া। একটিও পথ কুকুর যাতে বাদ না পড়ে সেদিকেই নজর রেখে চলেছি।

’’লকডাউনের মধ্যেও রাস্তায় নেমে পথ কুকুরদের মুখে খাবার পৌঁছে দিচ্ছি। শহরের ডগি, টমি, লালু, ভুলুরা খাবার পাচ্ছে। এটাই বড় কথা।

এ জাতীয় আরো খবর
Developed by
error: Content is protected !!